Categories
আন্দোলন সম্পর্কে

মুসলমানদের মধ্যে আন্দোলনগুলির উদ্বোধনঃ সেরা অনুশীলনগুলির বিষয়ের অধ্যয়ন – মণ্ডলীগুলির এন্টিয়ক পরিবার

মুসলমানদের মধ্যে আন্দোলনগুলির উদ্বোধনঃ সেরা অনুশীলনগুলির বিষয়ের অধ্যয়ন – মণ্ডলীগুলির এন্টিয়ক পরিবার

– উইলিয়াম জে. ডবৈস দ্বারা লিখিত 

আমি উইলিয়াম জে. ডবৈস, আদিবাসী মণ্ডলী স্থাপণের আন্দোলনগুলির এক বিশ্বব্যাপী জোট, মণ্ডলীগুলির এন্টিয়ক পরিবারের সহ-নেতা৷ গত ৩০ বছর ধরে, আমরা বদ্ধ দেশে বসবাসকারী প্রথম প্রজন্মের খ্রীষ্টানদের নেতৃত্বের ক্ষমতার গঠন এবং গৃহ মণ্ডলীগুলির সংখ্যাবৃদ্ধির কার্য শেখার জন্য তাদের সাহায্য করতে মনোযোগ প্রদান করেছি৷ আজকে আমি মুসলমান জনগনের মধ্যে আন্দোলনগুলির উদ্বোধনে মনোযোগ প্রদান করবো৷

আমাদের কার্যের প্রথম ২০টি বছর ধরে, আমাদের বহু প্রচেষ্টাগুলি ভ্রান্তি, ভুল এবং ব্যর্থতায় পূর্ণ ছিল৷ তবে, এটি আমার নিজস্ব জীবনের এক ব্যক্তিগত সঙ্কটের মধ্য দিয়েই আমরা এমন সামঞ্জস্য তৈরী করতে শিখেছিলাম যা যুগান্তকারী হতে পারে৷ ২০০৪ সালে আমি ইরানের ভূতল স্থিত গৃহ মণ্ডলীগুলির নেতাদের ২য় তীমথিয় শিখতে ও বুঝতে সাহায্য করছিলাম৷ এই প্রশিক্ষণ সমাপ্ত হওয়ার পর, আমাকে আল-কায়েদার এক কর্মী দ্বারা বিষাক্ত করা হয়েছিল এবং আমি প্রায় মারা গিয়েছিলাম৷ প্রচুর লোক আমার জন্য প্রার্থনা করছিল, এবং আড়াই মাসের ডাক্তার ও হাসপাতাল পরিদর্শনের পরে যা ঘটেছিল তা নির্ধারণের চেষ্টা করছিলাম, আমি আশ্চর্যজনকভাবে সুস্থ হয়ে উঠেছিলাম৷ আমি তার জন্য খুবই কৃতজ্ঞ৷

কিন্তু কাহিনীর মধ্যে শক্তি পরে এসেছিল — বছর পরের এক সত্য ঘটনা হিসাবে৷ আমি আফগানিস্তান, ইরাক এবং পাকিস্তানের নেতাদের জন্য একটি মণ্ডলী স্থাপণ আন্দোলনের প্রশিক্ষণের সহ-সঞ্চালনা করছিলাম এবং আমাদের সময়ের শুরুতে আমরা একসাথে নিজেদের পরিচয় করিয়ে দিচ্ছিলাম৷ আমি জানতে পেরেছিলাম যে আমাদের মণ্ডলী স্থাপকদের মধ্যে একজন সেই ব্যক্তি ছিলেন যিনি আমার বিষক্রিয়া ঘটিয়েছিলেন!

সেই মুহুর্তে আমি বুঝতে শুরু করেছিলাম যে সংখ্যাবর্দ্ধক আন্দোলনগুলির জন্য মিশ্র-সাংস্কৃতিক ভাষা এবং সংস্কৃতির যোগ্যতার চেয়ে আরও অনেক কিছুর প্রয়োজন৷ লোকেদের আত্মার বিষয়ে শেখার সাথেই আবির্ভাব শক্তির আরম্ভ হয়৷ এবং এই ক্ষেত্রে, যারা মন্দের প্রতি চরমপন্থীবাদী ছিলেন তাদের এক গভীর বোঝার বিকাশ করা৷ মুসলমানদের মধ্যে আন্দোলনের কাজ শুরু করতে এটি কি মূল্য গ্রহণ করবে তার হৃদয় বুঝতে শুরু করার জন্য প্রভূ আমাকে এক যাত্রায় রেখেছেন৷ 

বর্তমানে সেই একই মণ্ডলীগুলির এন্টিয়ক পরিবারের কাছে ১৫৭টি দেশে ৭৪৮টি ভাষায় ১,২২৫টি আন্দোলনের প্রবৃত্তিগুলি রয়েছে৷ সেখানে ৪২০ লক্ষ প্রাপ্ত বয়স্কদের সাথে ২৩ লক্ষ গৃহ মণ্ডলীগুলি রয়েছে৷ ঈশ্বর আমাদের ভেতরে এবং আমাদের মধ্যে, যা শুরু করেছিলেন, তা আমাদের ভগ্নতা, আমাদের ভ্রান্তি, এবং আমাদের ভুল বোঝাবুঝিগুলির সাথে শুরু করেছিলেন৷ কিন্তু প্রভূ দয়ায় আমাদের কিছু শক্তিশালী সরঞ্জাম এবং কার্যকর নীতিগুলি শেখার অনুমতি প্রদান করার পরে, ব্যাখ্যামূলক অগ্রগতি ঘটেছিল৷

আমরা তিনটি প্রাথমিকতার প্রতি মনোযোগ প্রদান করি৷ প্রথমটি হ’ল লোকেদের দাসত্ব থেকে পুত্রত্বের দিকে উদ্ধার করা৷ সেই দাসত্ব হতে পারে মানব পাচারের, কিন্তু এটি সর্বদা পাপের দাসত্ব৷ এবং এটি বৈষম্য, ব্যাথা, এবং বেদনায় ভরা একটি জীবন৷ কিন্তু যখন প্রভূ যীশু খ্রীষ্টের মাধ্যমে ঈশ্বরের সাথে তারা একটি ব্যক্তিগত সম্পর্কে প্রবেশ করে, তারা জীবিত ঈশ্বরের সন্তান, এবং সহ-উত্তরাধিকারী হয়৷ সুতরাং আমাদের সম্পর্ক, এমনকি নতুন বিশ্বাসীদের সাথেও, শ্রেণীবদ্ধ নয়৷ এটি একটি পরিবারের মতো কারণ আমরা তাদের প্রভূ যীশুতে, তারপর মণ্ডলীতে, এবং পরে বিশ্বে বাপ্তাইজিত হতে বলছিলাম৷ আমরা কখনোই কাউকে আমাদের ত্রাণকর্তার সন্ধানের পূর্বে আমাদের সংস্কৃতির সাথে জড়িত হতে বলি না৷ আমরা নিশ্চিত করি যে তারা যাতে প্রথমে আমাদের ত্রাণকর্তার সাথে সাক্ষাৎ করে৷ তারপর আমরা একসাথে আবিষ্কার করি যে তাদের নিজস্ব সংস্কৃতিতে মণ্ডলী দেখতে কেমন হবে৷ সুতরাং, প্রথম প্রাথমিকতাটি হ’ল দাসত্ব থেকে পুত্রত্বের দিকে উদ্ধার করা৷

দ্বিতীয়টি হ’ল অন্যদের খ্রীষ্টে নিয়ে আসার জন্য লোকেদের ক্ষমতায়িত করা৷ আপনারা এই কথাটি শুনে থাকতে পারেন “একটি শান্তির ব্যক্তির সন্ধান৷” আমাদের আদর্শে, আমরা এক প্রভাবশালী স্ত্রী বা পুরুষের সন্ধান করে থাকি৷ প্রেরিত ১০ অধ্যায় থেকে, আমরা এটিকে কর্ণেলীয় আদর্শ বলি৷ আমরা প্রভূকে এমন ব্যক্তিদের দেখানোর জন্য অনুরোধ করি যাদের তাদের গ্রাম বা তাদের সম্প্রদায়, বা তাদের দেশের মধ্যে অবিশ্বাস্য প্রভাব রয়েছে৷ তাদের কাছে সুসমাচার নিয়ে আসার দ্বারা, তারা তাদের সামাজিক মাধ্যমের সমস্ত ব্যক্তিদের মধ্যে সুসমাচার ছড়িয়ে দেবার ক্ষমতা রাখে৷ তারপর, প্রেরিত পৌল যেমন তীত-কে প্রত্যেকটি মণ্ডলীতে প্রাচীনদের স্থাপন করতে বলেছিলেন, তেমনি আমরা এই কর্ণেলীয়দের প্রত্যেকটি গৃহ মণ্ডলীতে নেতৃবৃন্দ এবং প্রাচীনদের স্থাপন করতে সাহায্যের জন্য অনুরোধ করি৷ আমাদের পরিচর্যা, তখন, মণ্ডলী থেকে মণ্ডলী হয়৷ কোন সংস্থা থেকে মণ্ডলী নয় কিন্তু কি করতে হবে এবং তারপর একসাথে তাতে কার্য করার জন্য একটি স্থানীয় মণ্ডলী অন্য একটি আদিবাসী গৃহ মন্ডলীর সাথে অংশীদার হয়৷

তারপরে আসে আমাদের তৃতীয় প্রাথমিকতা যা হ’ল সংখ্যাবৃদ্ধি৷ দ্বিতীয় তীমথিয় ২:২ পদ বলে যে আমরা নির্ভরযোগ্য ব্যক্তিদের কাছ থেকে যা শুনেছি, আমাদের তাদের কাছে পাঠিয়ে দিতে হবে যারা এটি অন্যদের সাথে প্রচার করতে পারবে৷ এটি একটি তিন-প্রজন্মের সংখ্যাবৃদ্ধি৷ আমরা পেয়েছি যে যদি আমরা নেতাদের বর্ধমান প্রজন্মগুলির দিকে মনোযোগ প্রদান করি, তাহলে আমরা আন্দোলনগুলির সংখ্যাবৃদ্ধি করতে পারি৷ আমাদের নেতৃত্বের প্রশিক্ষণ জ্ঞান নয়, বাধ্যতার উপর ভিত্তি করে৷ আমি আপনাদের একটি উদাহরণ দিবো৷ বেশ কয়েক বছর আগে, আমরা এক বড় শহরে একটি নতুন পরিচর্যা কার্য শুরু করেছিলাম, এবং আত্মীক বিষয়গুলিতে আগ্রহী একজনের সন্ধান পেয়েছি৷ আমাদের কর্মীদের মধ্যে একজন তাদের সাথে কথোপকথন শুরু করলেন, এবং শীঘ্রই তারা প্রভূ যীশু সম্পর্কে জিজ্ঞেস করছিল৷ কিন্তু রাজ্যের গভীরতা সম্পর্কে বিশ্লেষণ করার আগে, আমরা সেই ব্যক্তিকে গিয়ে পাঁচজন বন্ধুদের সন্ধান করতে বলেছিলাম৷ 

এই পাঁচজন বন্ধুকে একসাথে একটি গৃহ মণ্ডলীর সভাতে নিয়ে আসাই লক্ষ্য নয়, বরং, তাদের মধ্যে প্রত্যেক জন এই “কর্ণেলীয়” দ্বারা পরামর্শ প্রাপ্ত হওয়া উচিত৷ এই পাঁচজন বন্ধু তৎক্ষনাৎ তাদের পাঁচজন বন্ধুদের সাথে প্রচার করবে, এবং সেই পাঁচজন বন্ধুরা তাদের পাঁচজন বন্ধুদের সন্ধান করবে৷ সুতরাং প্রথম থেকেই, সংখ্যাবার্দ্ধকতা সম্পূর্ণ পরিচর্যার মধ্যে অনুবিদ্ধ হয়েছিল৷

এই তিনটি বিষয় দ্বারা – উদ্ধার, ক্ষমতায়ণ, এবং সংখ্যাবৃদ্ধি – আমরা বুঝতে পেরেছি যে যারা সবেমাত্র খ্রীষ্টে এসেছিল সেই ব্যক্তিদের থেকে অনেক কিছু শিখতে পারি৷ সুতরাং তাদের ঘোষনাত্মক কথনগুলির সাথে শিক্ষা দেওয়ার পরিবর্তে, আমরা শক্তিশালী প্রশ্নগুলি জিজ্ঞেস করার দ্বারা শুরু করি৷ এখানে তিনটি প্রশ্ন আছে যা আমরা জিজ্ঞেস করে থাকি৷ আমরা জিজ্ঞেস করি, “কে আত্মিকভাবে ক্ষুধার্ত? কখন তারা আত্মিকভাবে খোঁজ করে? এবং কোথায় তারা আত্মিকভাবে সচেতন থাকে?” আমরা যাদের সাথে পরিচর্যা করেছি তাদের সাংস্কৃতিক এবং আত্মীক ছন্দগুলি সন্ধান করার চেষ্টা করি৷ 

দৃষ্টান্তস্বরূপ, ইস্টার সপ্তাহান্তিক কাল মুসলমানদের জন্য কোন অতি পবিত্র দিন হবে না কারণ তারা প্রভূ যীশুকে এখনও জানেনা৷ আমরা পেয়েছি, আসলে, মুসলমানদের সাথে সুসমাচারটি প্রচার করার জন্য রমজান হলো ক্যালেন্ডারের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ মুহুর্ত৷ কেন? কারণ সেই মাসেই তারা ঈশ্বরের খোঁজ করে৷ নিশ্চয়ই এটি একই ঈশ্বর নয়৷ তারা ঈশ্বরের পুত্র প্রভূ যীশুর অনুসরণ করছে না; তারা কেবলমাত্র যথেষ্ট পরিমাণ কৃতিত্ব অর্জনের জন্য একটি পথ সন্ধানের চেষ্টা করছে যা দ্বারা হয়তো ঈশ্বর তাদের গ্রহণ করবেন৷ সুতরাং প্রথমে তাদের আমাদের পবিত্র দিনগুলির সাথে পরিচয় করানোর পরিবর্তে, আমরা তাদের পাশাপাশি আসার নির্ণয় করেছি, তাদের আত্মীক ছন্দগুলি বোঝা, এবং যারা আত্মিকভাবে ক্ষুধার্ত তাদের জন্য প্রার্থনা করা৷ তারা কোন ক্ষেত্রে ক্ষুধার্ত এবং কিসের প্রতি তারা সচেতন আমরা তা খুঁজে পাই৷ তারপর আত্মীক কথোপকথনের মাধ্যমে, আমরা একজন কর্ণেলীয়-কে খুঁজে পাই৷ আমরা তাকে তার বন্ধুদের সন্ধান করার জন্য অনুরোধ করি এবং সংখ্যাবৃদ্ধির প্রক্রিয়া আরম্ভ হয়৷ 

আমরা আমাদের নেতাদের ঈশ্বরের বাক্য এবং মূল পদগুলির অনুবাদের সাথে সুসজ্জিত করেছি৷ আমরা প্রায়শই তাদের জন্য ওয়াই-ফাই বাক্স সরবরাহ করি, যাতে একটি বোতামের চাপ দিয়ে কমপক্ষে বাণিজ্যিক ভাষায়, তারা প্রভূ যীশুর চলচ্চিত্র বা নতুন নিয়মের অংশগুলি ছড়িয়ে দিতে পারে৷ যদি জনগোষ্ঠীটি অসংযুক্ত হয়, তাহলে আমরা আমাদের দলগুলিকে মোবাইল ব্যাকপ্যাক সরবরাহ করি, যাতে যদি তারা গ্রামে থাকে তবে তারা প্রায় ৩০০ জনকে প্রভূ যীশুর চলচ্চিত্র দেখাতে পারবে৷ এবং আমরা তাদের লোকেদের সাথে কিভাবে আত্মীক কথোপকথন শুরু করতে হয় তার প্রচুর প্রশিক্ষণ দিয়েছি – যাতে লোকেরা সেই ঈশ্বরকে জানতে চায় যিনি তাদের উদ্ধার, তাদের শক্তিশালী এবং তাদের প্রভাবের সংখ্যাবৃদ্ধি করতে পারেন৷ তারা ঈশ্বর, প্রভূ যীশু, যিনি তাদের পাপগুলি ক্ষমা করেছেন তাঁর সাথে সাক্ষাৎ করতে পারে৷

এই সমস্ত কিছুর মাঝে, আমরা দেখতে পেলাম যে যদি আমরা একত্র হয়ে প্রার্থনা করি, যদি আমরা মধ্যস্থতা করার জন্য দলগুলি নির্মাণ করি, তাহলে এই মুহুর্তগুলিতে প্রচুর সুযোগ রয়েছে৷ রমজানের শেষের দিকে (আসলে ২৭তম দিনটি), একটি বিশেষ দিন থাকে, যাকে শক্তির রাত বলা হয়৷ বিশ্বজুড়ে বহু মুসলমানেরা বিশ্বাস করে যে এই এক রাতে, তাদের প্রার্থনাগুলি অন্যান্য দিনগুলির তুলনার হাজার গুণ বেশী ভার বহন করে৷ এবং সেই রাতেই, তারা ঈশ্বরকে তিনি কে হন তার প্রকাশনের জন্য অনুরোধ করে৷ তারা ঈশ্বরকে তাদের পাপের জন্য ক্ষমা চায়, এবং তারা স্বপ্ন ও দর্শণের জন্যও অনুরোধ করে৷ সুতরাং আমরা আমাদের লোকেদের পাঠাই, সেই অচেনাদের সাথে মিশতে যারা এক ঈশ্বরের সন্ধান করছে, যাতে আমরা সেই ঈশ্বর সম্পর্কে প্রচার করতে পারি যাকে আমরা জানি৷ 

১৯শে মে, ২০২০ সালে, একশো কোটিরও বেশী মুসলমানেরা উপবাস ও প্রার্থনার জন্য গৃহমধ্যে একত্রিত হয়েছিল৷ ৬২২ খ্রীষ্টাব্দের পর প্রথমবার, করোনা-ভাইরাসের কারণে, মসজিদগুলি বন্ধ ছিল৷ তারা এই “শক্তির রাতে” “আল্লাহ”-এর কাছ থেকে বিশেষ প্রকাশনের জন্য এবং তাদের পাপের ক্ষমাপ্রাপ্তির জন্য প্রার্থনা করছিল৷ ঠিক সেই সময়েই, ১৫৭টি দেশ থেকে ৩৮০ লক্ষের বেশী খ্রীষ্ট অনুসারীরা – সমস্ত প্রাক্তন মুসলমানেরা – তাদের কন্ঠস্বর তুলে ধরে একমাত্র সত্য এবং জীবিত ঈশ্বরকে বিশ্বব্যাপী মুসলমানদের কাছে চিহ্ন, চমৎকার, স্বপ্ন এবং দর্শনগুলির মাধ্যমে স্বয়ং-কে প্রকট করার জন্য অনুরোধ করে প্রার্থনা করছিলেন৷ তারা প্রার্থনা করছিলেন যে প্রথমবার, পবিত্র আত্মার শক্তির মাধ্যমে, মুসলমানেরা যাতে বুঝতে পারে যে দয়া, প্রেম, এবং ক্ষমা কেবলমাত্র প্রভূ যীশু খ্রীষ্টতেই পাওয়া যায়৷ এবং এই “এক অলৌকিক রাতে” ঈশ্বর আমাদের প্রার্থনা শুনেছেন৷

যখন আমরা প্রার্থনায় একসাথে একমত হই এবং স্বর্গের সিংহাসন গৃহে যাই, আমরা প্রভূ যীশুকে আমাদের হয়ে মধ্যস্থ করার জন্য অনুরোধ করি – সুতরাং আমরা সঠিক সময়ে সঠিক স্থানে আত্মীক কথোপকথন করতে পারি৷ আমরা অলৌকিক বস্তু ঘটার আকাঙ্খা করতে পারি৷ আমি আপনাদের একটি কাহিনী বলতে চাই যা এই বছর রমজান মাস চলাকালীন ঘটেছিল৷ এই সময়ে আমরা দলগুলিকে গ্রাম থেকে গ্রামে পাঠাচ্ছিলাম, খোলা দ্বার এবং উন্মুক্ত হৃদয় দেওয়ার জন্য প্রভূর কাছে অনুরোধ করছিলাম৷ এক দল একটি দেশে গিয়েছিল (আমি ক্ষমা চাইছি যে সুরক্ষার কারণে আমি সেই দেশের বিবরণগুলি দিতে পারছি না), কিন্তু তারা এমন একটি গ্রামে গিয়েছিল যেখানে কেউ তাদের গ্রহন করেনি৷ কেউ তাদের আতিথেয়তা দেখায়নি, কেউ তাদের জন্য দ্বার খোলেনি৷

দিনের শেষে, দলটি অত্যন্ত হতাশ হয়ে পড়েছিল৷ তারা গ্রামের বাইরে গিয়ে সকলেই একটি গাছের তলায় বসে এবং একটি ক্যাম্পফায়ার তৈরী করে যাতে তারা সেই রাতের জন্য গরম থাকতে পারে৷ তারা প্রার্থনা করছিলেন এবং কি করতে হবে তার জন্য প্রভূকে জিজ্ঞেস করতে শুরু করে দিয়েছিল, এই গ্রামের মধ্যে সাফল্যতা অর্জনের উপায়ের জন্য প্রভূকে অনুরোধ করেছিলেন৷ রাত গভীর হতে থাকলে তারা ঘুমিয়ে পড়েছিলেন৷ শীঘ্রই তাদের ঘুম ভেঙ্গে যায় এবং নেতাদের মধ্যে একজন তাদের দিকে একটি জলন্ত আগুনকে আসতে দেখেন৷ এটি তাদের দিকে চলে আসা, আগুনের মশাল হাতে ২৭৪ জনের ভিড়ে রূপান্তরিত হয়ে গেল৷ দলটি প্রাথমিকভাবে ভয়ে ভীত হয়ে গিয়েছিল যতক্ষণ না তাদের একজন বলেছিলেন, “ওহে, আমরা এই গ্রামে যাওয়ার এবং প্রভূ যীশুর প্রচার করার জন্য একটি সুযোগের জন্য প্রার্থনা করছিলাম৷ এখন গ্রামটিই আমাদের কাছে আসছে!”

এই ব্যক্তিদের সাথে সাক্ষাৎ হওয়ার ঠিক আগেই, ২৭৪ জন পুরুষের মধ্যে একজন এক পা এগিয়ে আসে এবং বলেছিল, “আপনারা কে আমরা জানি না, আপনারা কোথায় থেকে এসেছেন আমরা জানি না, এবং আজকে আপনারা যখন আমাদের গ্রামে এসেছিলেন আমরা আপনাদের জন্য আমাদের গৃহের দ্বার খুলে দেইনি৷ কিন্তু আজ রাতে, আমাদের মধ্যে প্রত্যেক জনই হুবহু একই স্বপ্ন দেখেছি৷ এবং সেই স্বপ্নে এক স্বর্গদূত এসে আমাদের কাছে উপস্থিত হয়ে বললেন, “এই ব্যক্তিরা যারা তোমাদের গ্রামে এসেছে তাদের কাছে সত্যটি আছে৷ তোমাদের যাওয়া এবং অনুরোধ করা, এবং তারা যা বলবে তার অনুসরণ করা উচিত৷”

সেই মুহুর্তেইঃ সঠিক স্থানে, সঠিক সময়ে, সঠিক ব্যক্তির সাথে আত্মীক কথোপকথন ঘটেছিল৷ এবং রাত শেষ হবার আগে, গৃহের ২৭৪ জন নেতারা সকলেই পেশাদার বিশ্বাসী তৈরী হয়েছিলেন এবং তাদের ধর্ম ত্যাগ করে প্রভূ যীশুর সাথে সম্পর্কে চলেছিলেন৷ সেটাই প্রার্থনার ক্ষমতা এবং সঠিক স্থানে আত্মীক কথোপকথন করা৷

আমি মুসলমান জনগনের মধ্যে আন্দোলনের উদ্বোধন করার বিষয়ে একে অপরের কাহিনী ছেড়ে যেতে চাই৷ এটি এই ধারণা থেকে আসে না যে কর্মী বা ধর্মপ্রচারকেরাই এই কার্যটি করবে৷ এই বিষয়টি হলো নেতাদের সুসজ্জিত ও গঠন করা, কর্ণেলীয়-কে, যে কার্যটির সংখ্যাবৃদ্ধি করবে৷ কয়েক মাস আগে, নেতারা আমাদের কাছে এসে বলেছিলেন, “আপনি জানেন, আমরা নির্দিষ্ট কয়েকটি গ্রামে পৌঁছাতে পারিনি এবং নিয়মিত উপায়গুলি ব্যবহার করে তাদের কাছে পৌঁছানোর কোনো উপায়ও নেই৷ সুতরাং আমরা প্রার্থনা করেছি, এবং আমরা অনুভব করেছি যে পবিত্র আত্মা আমাদের লোকেদের দলগুলিকে আলাদা করতে বলছেন যারা মরুভূমির ওপারে যায় এবং নিশ্চিত করে যে সমস্ত অসংযুক্ত ব্যক্তি, সেই সমস্ত যারা সুসমাচার অপ্রাপ্ত এবং অস্পৃশ্য, সকলে ঈশ্বরের সুসমাচারটি শুনতে পায়৷” 

আপনার এবং আমার কাছে মুসলমান জনগনের মধ্যে আন্দোলনগুলির উদ্বোধনের একটি সুযোগ রয়েছে৷ এটি শুরু হয় যখন আমরা আশেপাশে বাসকারী এবং কাছাকাছি সংস্কৃতির স্থানীয় লোকেদের প্রশিক্ষণ প্রদান করি৷ আমরা একজন কর্ণেলীয়-কে পেয়েছি, আমরা সেই ব্যক্তির ওপর ব্যয় করি, এবং তিনি আমাদের কিভাবে তার বন্ধুদের সাথে পরিচালনা করতে হবে যাতে তারা তাদের বন্ধুবান্ধবদের বলে তা বুঝতে সাহায্য করেছিলেন৷ এটি উটে করে মধ্য প্রাচ্যের মরুভূমির মতো বহুদূরে হতে পারে৷ আমরা যদি স্থানীয় মণ্ডলীগুলিকে আমাদের অগ্রে থাকার পরিবর্তে তাদেরকে ঈশ্বরের দেওয়া দায়িত্বগুলি নিতে ক্ষমতায়ণ করি, তাহলে আমরা বার্ণবা হবো যারা এই প্রেরিতদের এবং যারা প্রেরণ করছে তাদের সমর্থন করে৷ তাই আমি বলবো যে আমাদের দায়িত্ব হলো ব্যক্তিদের প্রশিক্ষণ এবং সরঞ্জাম দিয়ে সজ্জিত করা এবং বিশ্বাস প্রতিষ্ঠা করা৷ তারা নেতাদের নিযুক্ত করে এবং তারা মণ্ডলী স্থাপকদের প্রেরণ করে অন্যান্য ব্যক্তিদের সংখ্যাবৃদ্ধি করার জন্য যারা এরপরে সুসমাচার প্রচার করবে৷

সংক্ষেপে, আমি মনে করি আমরা মুসলমান জনগনের মধ্যে এইভাবে আন্দোলনগুলির উদ্বোধন করার দিকে নজর দিতে পারি৷ প্রথমত, প্রেরিতের পুস্তকের সংস্কৃতি প্রেরিতের পুস্তকের মতো যুগান্তকরণ তৈরী করতে পারে৷ দ্বিতীয়ত, আমরা আমাদের কথোপকথনগুলির সামঞ্জস্য করে মুসলমান জনগনের মধ্যে আন্দোলনগুলির উদ্বোধন করি, যাতে কথোপকথনগুলি সঠিক স্থানে, সঠিক সময়ে, সঠিক ব্যক্তির সাথে আত্মীকভাবে পরিচালিত হয়৷

আমরা লোকদের প্রভূ যীশুতে বাপ্তিস্ম নিতে অনুরোধ করি, তারপর লোকেদের আমাদের মণ্ডলীর সংস্কৃতি অনুযায়ী তাদের উপায় খুঁজতে বলার পরিবর্তে, তাদের মণ্ডলীটি কেমন দেখতে তা আবিষ্কার করতে সাহায্য করি৷ আমাদেরকে ঈশ্বরের কাছে একজন কর্ণেলীয়ও চাইতে হবে, একজন প্রভাবশালী স্ত্রী বা পুরুষ, যিনি ইতিমধ্যেই সম্পর্ক স্থাপিতদের মধ্যে তাদের প্রভাবকে রাজ্যের বৃদ্ধির জন্য ব্যবহার করবেন৷ আপনি মুসলমান জনগনের মধ্যে আন্দোলনগুলির উদ্বোধন, সরঞ্জামগুলির সন্ধান, গুণমান প্রশিক্ষণ, এবং বিশ্বাস প্রতিষ্ঠা করার বিবেচনা করার সাথে সাথে আমি আপনাদের উৎসাহিত করতে চাই৷ একটি মণ্ডলী, নিকটবর্তী এবং নিকটবর্তী সংস্কৃতির মণ্ডলীর সাথে সংযোগ স্থাপিত করছে, যাতে আপনারা একসাথে অসংযুক্ত, সুসমাচার অপ্রাপ্ত ব্যক্তিদের কাছে যেতে পারেন এবং কোন কর্ণেলীয়কে আপনার সাথে অংশীদারী করে রাজ্যের সংখ্যাবৃদ্ধি করতে দেখতে পারেন৷ ঈশ্বর আপনাকে আশীর্বাদ করুক৷

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।